ইউআইডিএআই সম্পর্কে

ভারতীয় বিশিষ্ট পরিচয় প্রাধিকরন (ইউআইডিএআই) ভারত সরকারের দ্বারা ইলেকট্রনিক্স এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের(এমইআইটিওয়াই) অধীন আধার আইন, ২০১৬ (আর্থিক ও অন্যান্য ভর্তুকি, উপকারিতা ও পরিষেবাগুলির লক্ষ্যপূর্ণ ডেলিভারি)অনুযায়ী ১২ জুলাই ২০১৬ তে প্রতিষ্ঠিত একটি সংবিধিবদ্ধ কর্তৃপক্ষ

একটি সংবিধিবদ্ধ কর্তৃপক্ষ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হবার পূর্ব পর্যন্ত,(২৮ জানুয়ারী ২০০ থেকে) ইউআইডিএআই পরিকল্পনা কমিশনের (এখন নিতি আয়োগ) একটি সংযুক্ত অফিস হিসেবে প্রতিষ্ঠিত ছিল,(দ্রষ্টব্য গেজেট নোটিফিকেশন নম্বর A-43011/02/2009-Admn.I). ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫ পরে সরকার ব্যবসায়িক বিধি বরাদ্দ কে সংশোধিত করে ইউআইডিএআই কে যোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের,ইলেকট্রনিক্স ও তথ্য প্রযুক্তি বিভাগের (ডিইআইটিওয়াই)সঙ্গে সংযুক্ত করার জন্য

ইউআইডিএআই ভারতের সকল অধিবাসীদের একটি বিশিষ্ট সনাক্তকারী নম্বর (ইউআইডি)যার নাম “আধার” নির্গত করার উদ্দেশ্যের সঙ্গে তৈরি করা হয়েছে যা ক) যথেষ্ট শক্তসমর্থ ডুপ্লিকেট এবং জাল পরিচয় নিষ্কাশন করা, এবং (খ) এটি সহজ,খরচ কার্যকর উপায়ে প্রমাণীকৃত এবং যাচাই করা যাবে. প্রথম ইউআইডি সংখ্যা মহারাষ্ট্রের নান্দুরবারের বাসিন্দাকে ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১০ সে জারি করা হয়. কর্তৃপক্ষ এখন পর্যন্ত ভারতের অধিবাসীদের 120+ কোটির থেকেও বেশি ইউআইডি নম্বর জারি করেছে

আধার অ্যাক্ট ২০১৬ অনুযায়ী, ইউআইডিএআই আধার পঞ্জিকরনের এবং প্রমাণীকরণ, সহ আধার জীবনচক্রের সকল পর্যায়ের অপারেশন এবং ব্যবস্থাপনা জন্য দায়ী, ব্যক্তিদের আধার নম্বর প্রদানের নীতি, পদ্ধতি এবং সিস্টেম উন্নয়নশীল করা, এবং পরিচয় তথ্য ও ব্যক্তিদের প্রমাণীকরণ সঞ্চালন করার জন্য প্রয়োজন

ইউআইডিএআই সম্পর্কে আরও জানার জন্য, সাংগঠনিক কাঠামো দেখুন.